ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে রোমাঞ্চকর ওডিআই টাই, টিম ইন্ডিয়া শেষ ওভারগুলিতে বিব্রতকর ব্যাটিং করেছে

ঢাকার শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে আজ বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল এবং ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের মধ্যে একটি রোমাঞ্চকর ওডিআই ম্যাচের সাক্ষী হয়েছে। দুই দলের মধ্যকার ম্যাচটি সমতায় শেষ হয়েছে, যার ফলে সিরিজও ১-১ সমতায় রয়েছে। পুরুষদের ওডিআই ক্রিকেটে, টাই ম্যাচের পরে সুপার ওভার অনুষ্ঠিত হয়, কিন্তু মহিলাদের ওডিআই এবং আইসিসি চ্যাম্পিয়নশিপ চক্রে, কাটা-অফ বা নির্ধারিত সময়ের কারণে সুপার ওভার অনুষ্ঠিত হতে পারে না, তাই এই ম্যাচের ফলাফল টাই শেষ হয়।

ম্যাচের কথা যদি বলি, টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। ওপেনাররা স্বাগতিকদের কঠিন সূচনা এনে দেন এবং প্রথম উইকেটে 93 রান যোগ করেন। শামীমা সুলতানা 52 রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন এবং ফারগানা হক এক প্রান্তে দাঁড়িয়ে 107 রানের ঐতিহাসিক ইনিংস খেলেন। বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করা প্রথম মহিলা ব্যাটসম্যান হলেন ফারগানা। নিগার সুলতানা ২৪ ও শোভনা মোস্ত্রি অপরাজিত ২৩ রান করেন। বাংলাদেশ নির্ধারিত 50 ওভারে 4 উইকেট হারিয়ে 224 রান করে এবং টিম ইন্ডিয়ার সামনে চ্যালেঞ্জিং টার্গেট দেয়।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা খারাপ হয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। শফালি ভার্মা (4) এবং ইয়াস্তিকা ভাটিয়া (5) তাড়াতাড়ি আউট হয়ে গেলেও স্মৃতি মান্ধানা এবং হারলিন দেওলের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ জুটির সাক্ষী হয়েছিল। দুই ব্যাটসম্যান মিলে ১০৭ রান যোগ করেন মন্ধনা ৫৯ রানের ইনিংস খেলেন। অধিনায়ক হরমনপ্রীত কৌরও তেমন চমক দেখাতে পারেননি এবং ১৪ রান করে আউট হন। এর পর হারলিন ও জেমিমা রড্রিগস একসঙ্গে ইনিংস নেন এবং একসঙ্গে ৩১ রান করেন এবং হারলিন ৭৭ রানের সর্বোচ্চ ইনিংস করেন।

শেষ 9 ওভারে ভারতীয় দলের প্রয়োজন ছিল 36 রান এবং 6 উইকেট হাতে ছিল কিন্তু এখান থেকে টিম ইন্ডিয়ার ইনিংস বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। শেষ ওভারে চার রানের প্রয়োজন ছিল কিন্তু ম্যাচ টাই হওয়ার পর মারুফা আক্তার মেঘনা সিংকে আউট করে ম্যাচ টাই করে দেন। জেমিমাহ রদ্রিগেস ৩৩ রান করার পর অপর প্রান্তে অপরাজিত থাকেন।

দ্রুত লিঙ্ক

স্পোর্টসকিডা থেকে আরও


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top